ব্যোমযাত্রীর ডাইরি

দিগন্ত বলে কিছু নেই,

শুধু চোখ থেকে ছুটে যায় আলো,

ক্রমশ হয়ে যায় ফিকে,

আমি ছুটছি, আর ছুঁইছি গতিবেগ

অন্ধকূপের দিকে।

এই যে সময় থমকে আছে

প্রভুভক্ত হাতের ঘড়ি

এই অক্সিজেন হয়তো তোমার

কিন্তু ভালোবাসা ওরই।

আলোর সাথে পাল্লা দিয়ে

ছুটছে মহাকাশযান,

তবু অন্ধকূপে আলো বেঁকে

জমায় কিসের, কি অভিমান?

সেই অভিমান জমতে জমতে

টাইম মেশিনের বক্ষে,

আমার অতীত স্পষ্ট হল

দারুণ সময় অক্ষে।

স্পষ্ট হল, নষ্ট হল

পিছনফেরা জীবন,

এই সুযোগে শুধরে নেব

কষ্টে পাওয়া ভীষণ।

আমার ভরও শক্তি হবে

আমার দরও আকাশ ছোঁয়া

মহাকর্ষ টানছে না আর

টানছে দেশের গুঁড়ের মোয়া।

আমি তো আর বিপ্লবী নই,

দিন শুধরে দেব তোমার ঘর,

আশা ছেড়ে খুঁজে বেড়াই

নতুন দেশ, আপন-পর।

কিন্তু যদি ফিরতে চাই পথ চিনে

উড়বে ধ্বজা এক ঝলক,

কেউ পোঁতেনি অন্ধকূপে

ধুলো চানের মাইল ফলক,

কেউ পোঁতেনি মহাকাশে

বাড়ী ফেরার মাইল ফলক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!