সম্পাদকীয়

প্রিয় পাঠক,

              বসন্ত এসে গেছে।  না, কেবল বাংলা সিনেমার গান হয়ে ভেসে আসা নয়, একেবারে সশরীরে ল্যান্ডিং! যদিও শীত চলে যাওয়া আর গরম পড়ে যাওয়ার মাঝের এই সময়টা আগের মতো নেই, বদলেছে অনেকটাই। তবু বসন্ত তো বসন্তই। তার এলোমেলো মনকেমন হাওয়া আর একটু একটু করে বাড়তে থাকা দিনের বেলার ভিতর সে জাঁকিয়ে বসতে শুরু করেছে। আর সেই সময়েই আপনাদের সামনে এসে হাজির কল্পবিশ্ব। তার পঞ্চম সংখ্যা নিয়ে।

     গত বইমেলায় হইহই করে বেরিয়েছে কল্পবিশ্বের চারটি সংখ্যা থেকে বাছাই করা সেরা লেখাগুলির সংকলন ‘সেরা কল্পবিশ্ব ২০১৬’। মানুষ তাকে ভালোবেসেছে। আমরা আহ্লাদিত। উৎসাহের পারদ ঊর্ধ্ব থেকে ঊর্ধ্বতর হচ্ছে। গত বছরের গোড়ায় যে নতুন পত্রিকার জন্ম, সে তার টলোমলো হাঁটা পেরিয়ে ধীরে ধীরে নিজের পছন্দমতো পথ ধরে এগোচ্ছে… এ যেন সত্যিই এক স্বপ্নপূরণ। তবে স্বপ্নপূরণ বলতে সাধারণত যে পরিতৃপ্তি বোঝায়, আমাদের তাতে ঠিক সায় নেই। বরং এক স্বপ্ন থেকে অন্য স্বপ্নের রঙের ভিতর সেঁধিয়ে গিয়ে নতুন একটা স্বপ্নের পথ ধরে এগিয়ে চলার মধ্যেই বেশি আনন্দ।

     প্রথম থেকেই ইচ্ছে ছিল বাংলা কল্পবিজ্ঞানের চর্চায় অবহেলিত যে সমস্ত দিক সেগুলো নিয়ে কাজ করার। সেই ইচ্ছে থেকেই এবারের সংখ্যার পরিকল্পনা। আমাদের এই সংখ্যার প্রচ্ছদকাহিনী জাপানি কল্পবিজ্ঞান। সাহিত্যের অন্যান্য ধারার মতো দর্শন, সমাজ, ইতিহাসের জলছাপে দেশ অনুযায়ী কল্পবিজ্ঞানেরও চেহারা-চরিত্র বদলে যায়। জাপানের কল্পবিজ্ঞানও তার ব্যতিক্রম নয়। উন্নত থেকে উন্নততর হতে থাকা টেকনোলজির সঙ্গে দেশের প্রাচীন মিথের সংযোগ সেদেশের কল্পবিজ্ঞানকে পুষ্ট করেছে। দুর্ভাগ্যের ব্যাপার হল, বাংলা ভাষায় তাকে নিয়ে কাজ হয়েছে কম। আশা করা যায়, আমাদের এবারের সংখ্যা পাঠকের মনের অন্ধকার কিছুটা হলেও দূর করতে পারবে। গুরুত্বপূর্ণ প্রবন্ধ, অনুবাদ ইত্যাদির মধ্যে দিয়ে সূর্যোদয়ের দেশের কল্পবিজ্ঞানের দরজা পাঠকের সামনে খুলে দিচ্ছে কল্পবিশ্ব।

     এই সংখ্যার এক অন্যতম আকর্ষণ স্পেনীয় কল্পবিজ্ঞান লেখক কার্লোস সুচলওস্কি কনের একটি অসামান্য সাক্ষাৎকার। জন্মসূত্রে আর্জেন্টিনার হলেও সাতের দশক থেকে স্পেনের বাসিন্দা কার্লোস আর্জেন্টিনা ও স্পেনের বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় নিয়মিত লিখে চলেছেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল অ্যাক্সন, আর্টিফেক্স, মাইক্রোরিলেটস্‌ ইত্যাদি। সত্তর ছুঁই ছুঁই মানুষটার সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আমরা প্রতি মুহূর্তে চমকে উঠেছি তাঁর প্রগাঢ় পাণ্ডিত্য ও মননশীলতার পরিচয় পেয়ে।

     এছাড়াও আরও সব নতুন গল্প, প্রবন্ধের পাশাপাশি নিয়মিত বিভাগগুলি তো আছেই। তাহলে আর দেরি কেন। উঠে বসুন কল্পনার স্পেসশিপে। আরেকটি নতুন সংখ্যার কাউন্ট ডাউন শুরু হল।

পাঠক, আপনি তৈরি তো?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!