মঙ্গলগ্রহের মিঃ স্কাইগেক

“মঙ্গলগ্রহের মিঃ স্কাইগেক” কমিক স্ট্রিপটির প্রথম আবির্ভাব ১৯০৭ সালের অক্টোবর মাসে সিয়াটেল স্টার (Seattle Star) পত্রিকায়। লেখক ফ্রেড স্কেফের আর কার্টুনিস্ট আরমুন্ড ডি কন্ডের হাতে গড়ে উঠেছিল বিশ্বের প্রথম কল্পবিজ্ঞান কমিক স্ট্রিপ।

     প্রায় এক শতাব্দী আগে একটি নিরীহ ভদ্র ভিনগ্রহী মিঃ স্কাইগেক পৃথিবীতে এসেছিল। সাথে এনেছিল শুধুমাত্র একটি নোটবই। সে পৃথিবীর [আরো পড়ুন]

Read more

শেষের সেই দিন

previous arrow
next arrow
ArrowArrow
Slider
Read more

কল্পবিজ্ঞান কুইজ ৩

কল্পবিশ্বের দ্বিতীয় সংখ্যার কুইজের উত্তর কেউ সম্পূর্ণ ঠিক দিতে পারেননি। আমাদের দুই পাঠক বন্ধু শ্রী সোনাল দাস  শ্রী সন্দীপন গঙ্গোপাধ্যায় সব থেকে বেশি সংখ্যক সঠিক উত্তর (৯) দিয়েছেন। আশা করছি এই সংখ্যার কুইজের সব প্রশ্নের সঠিক উত্তর আমরা পাঠকেদের কাছ থেকে পাবো।

কল্পবিজ্ঞান কুইজ-৩

১) ১৯৮২ সালে নির্মিত “স্টার ট্রেক II : দ্য র‍্যাথ অফ খান” ছবিটির পরিচালক কে?

২) বিখ্যাত কল্পবিজ্ঞান [আরো পড়ুন]

Read more

অগ্নিপথ

স্থান: কেনিয়া

কাল: ৫,০০০,০০০ বি.সি.ই.

পাত্র: মুসা (পিকিং মানব)

[“Seek wood already touched by fire. It is not then so very hard to set alight” ~ African Proverb]

||১ক||

[আরো পড়ুন]

আকাশ লাল, বাতাস ভারী, ভোর অস্নিগ্ধ। ঝাঁকে ঝাঁকে পাখী উড়ে যাচ্ছে চীৎকার করতে করতে। অনতিদূরের বন থেকে দলে দলে পশুরা ছুটে পালাচ্ছে যতটা দূরে পারা যায়। বাঘের পাশে হরিণ, হাতির পাশে গণ্ডার, খরগোশের মাথার ওপর দিয়ে বন্য কুকুর। আর যে বড় গুহা-শ্রেণীর [আরো পড়ুন]

Read more

চলচ্চিত্র সমালোচনা – ফারেনহিট ৪৫১ (১৯৬৬)

“To learn to read is to light a fire; every syllable that is spelled out is a spark.” — Victor Hugo

ওরা যেন প্রশ্ন না করে? না যেন জানতে চায় এই প্রতিদিনের সামাজিক অস্তিত্বের নিয়ন্তাকে … যদি রাষ্ট্রের ভাবনা এমনই হয়? যদি সে টুঁটি টিপে রাখে মুক্তচিন্তার তাহলে তো স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে বলার জন্য কোন স্বরই অবশিষ্ট থাকবে না। আর বই ছাড়া এই মুক্তবুদ্ধি ছড়াবে না কোনমতেই। তাই পোড়াও বই। এই প্রায় ডিস্টোপিয়ান আবহে রে ব্র্যাডবেরির [আরো পড়ুন]

Read more

চলচ্চিত্র সমালোচনা – দ্য ম্যান ফ্রম আর্থ (২০০৭)

The Man From Earth

Diretor – Richard Schenkman

Written By – Jerome Bixby

Music – Mark Hinton Stewart

কেমন হয়, যদি হঠাৎ আবিষ্কার করেন যে আপনার পুরোনো সহকর্মীটি আপনাকে বিশ্বাস করতে বাধ্য করাচ্ছেন তিনিই শ্রীমধুসূদন – বা অমর হনুমান? আপনি আজ জানতে পারলেন এতদিন যার সাথে বসে টিফিন খেয়েছেন, এক সাথে সুখ দুঃখ ভাগ করেছেন, তিনি আসলে সেই পরম “তিনি”- তখন অনুভুতিটা কিরকম চরম হবে? ব্যাপারটা হল আপনাকে যদি সরাসরি কেউ এরকম [আরো পড়ুন]

Read more

গ্রন্থ পরিচিতি – দোর্দোবুরুর বাক্স

বইঃ দোর্দোবুরুর বাক্স

লেখকঃ দেবজ্যোতি ভট্টাচার্য 

প্রচ্ছদঃ ওঙ্কারনাথ ভট্টাচার্য 

প্রকাশকঃ আনন্দ

প্রথম সংস্করনঃ জানুয়ারী ২০১০

পরিচায়কঃ অপরাজিত সেনগুপ্ত 

বর্ষাকাল, সন্ধ্যা হব হব করছে। তুমুল বৃষ্টিতে আমার বন্ধুবান্ধবরা কেউই আজ নিজ নিজ কর্মস্থলে পা রাখেনি। সন্ধ্যার দিকে তাই অনেকদিন বাদে আড্ডা জমল পাড়ার ছোট্ট ক্লাবঘরে। ক্লাবের আড্ডার মজাই আলাদা। [আরো পড়ুন]

Read more

গ্রন্থ পরিচিতি – বনদেবী ও পাঁচটি পায়রা

বইঃ বনদেবী ও পাঁচটি পায়রা

লেখকঃ শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়

প্রচ্ছদঃ সমীর সরকার 

প্রকাশকঃ আনন্দ

প্রথম সংস্করনঃ জানুয়ারী ২০১৩ 

পরিচায়কঃ অরুন্ধতী সিনহা রয়  

বর্তমান মানব সভ্যতা ধীরে ধীরে অনেকটাই যন্ত্রনির্ভর হয়ে উঠেছে। জীবনের প্রায় প্রতি ক্ষেত্রেই আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার ক্রমবর্ধমান। যেভাবে যান্ত্রিকতা ধীরে ধীরে আমাদের গ্রাস করছে, কি হবে আমাদের [আরো পড়ুন]

Read more

অপারেশন ডার্ক গডেস

র‍্যাক্সরের ছোঁড়া লাল রঙের লেসার নাইফটা যখন বাতাস কেটে আমার দু পায়ের মাঝ দিয়ে চেয়ারটার সাথে গেঁথে গেলো, সত্যি বলছি ভেনাস-৯-এর অ্যান্ড্রয়েড নর্তকীর মুখটাই মনে পড়ে গেল। আর বোধহয় দেখাই হবে না ভেনাসের প্রাসাদ প্রতিম ড্যান্স বার আর ভার্চুয়াল ডেটিং এরেনাগুলো! লোকে বলে মরণকালে নাকি প্রিয়জনদের মুখ মনে পড়ে! অতএব বুঝতেই পারছেন, আমার জীবনে ওই বস্তুটির যথেষ্ট [আরো পড়ুন]

Read more

সবুজ পৃথিবীর জন্য

এখন সদ্য ভোর হয়েছে, ঘড়ির দিকে চেয়ে তিয়া মিলিয়ে নিল। ওর ঘুম ভেঙেছে আর একটু আগেই। ও আস্তে আস্তে ব্যালকনির দরজাটা খুলে প্রায় নিঃশব্দ পদক্ষেপে ব্যালকনিতে এসে দাঁড়াল।

     ও রোজই সকালে একবার করে এসে দাঁড়ায় এই অদ্ভুত ব্যালকনিটায়। খুব ছোটোবেলা থেকে, একেবারে তিন-চার বছর বয়স থেকেই এরকম করে। কেন কে জানে। বাইরেটা একবার না দেখলে ওর কেন যেন খুব খালি-খালি লাগে, সারাটা [আরো পড়ুন]

Read more

জলমানুষ

পিনাকের দিকে তাকিয়ে ভারি অবাক হয় সোহম। পিনাক বরাবরই রোগাপাতলার অপোজিট। খুব ফর্সা; উচ্ছ্বল শরীর। ইদানীং মাসলম্যান টাইপ শরীরের রক্তমাংসের পিনাককে কেন যেন জল টলমল চৌবাচ্চা বলে মনে হয় ওর। শীতে যে ঝড়টা হল, তারপর থেকেই এরকম মনে হয়। ডুয়ার্সে বেড়াতে গিয়েছিল ওরা দুজনে। গিয়ে তো যাকে বলে মোহিত পিনাক। ক্লোরোফিলের গন্ধে মাতোয়ারা বনভূমি ওকে আবিষ্ট করে ফেলেছিল। [আরো পড়ুন]

Read more

ফুলস্টপ

আজকের দিনটা শুভর কাছে বেশ অন্যরকম। শুভ মানে শুভব্রত সিনহা, টরন্টোর মাউন্ট সিনাই হসপিটালের সাইকোলজি ডিপার্টমেন্টের আপাতত হেড। আপাতত বলার কারণ হয়ত ডক্টর পল কেলির আচমকা পদত্যাগও হতে পারে। যাই হোক, আজ রুটিন-মাফিক ভিজিট সারতে রাত প্রায় ৮টা বেজে গিয়েছিল শুভর, তাই ডক্টরস কোয়ার্টারে না গিয়ে তার চেম্বার থেকেই কলকাতার বাড়িতে ফোনটা করে স্কাইপিটা অন করতে বলল [আরো পড়ুন]

Read more

টাইম লকার

প্রফেসর পুরকায়স্থ গান শুনতে ভীষণই ভালবাসেন। একজন বৈজ্ঞানিক হলেও গানবাজনার দিকে তাঁর বরাবরই ঝোঁক ছিল। যদিও ইদানীং তিনি বেশির ভাগ সময়টাই আকণ্ঠ খেয়ে থাকেন, তবুও বৈজ্ঞানিক হিসেবে তাঁর কর্মদক্ষতা নেহাত অস্বীকারও করা যায় না। আসলে প্রথাগত পড়াশোনায় তাঁর খুব একটা আগ্রহ ছিল না, তাই ওঁর যুগান্তকারী গবেষণামূলক থিয়োরিগুলোর জন্য বিশেষ কোন সরকারী আর্থিক সাহায্যর [আরো পড়ুন]

Read more

অকাল তমসা পর্ব-১

(এইচ পি লভক্র্যাফটের শ্যাডো আউট অফ টাইম অবলম্বনে)

পর্ব – ১

আমার নাম ন্যাথানিয়েল উইনগেট পিসলি। ছ’সাত বছর আগে যদি কেউ খবরের কাগজ বা বিভিন্ন সাইকোলজিক্যাল জার্নাল নিয়মিত ঘাঁটাঘাঁটি করে থাকেন তাহলে তাঁদের কাছে আমার নামটা চেনা চেনা ঠেকতেও পারে। ১৯০৮ থেকে ১৯১৩ সাল অবধি আমার স্মৃতিবিলোপ তথা স্মৃতিবিভ্রাট নিয়ে ওই সময় কাগজে বিস্তর লেখালিখি হয়েছিল। সাথে [আরো পড়ুন]

Read more

লিমেরেন্স

আজকের এই ডিজিটাল বিশ্বের বিষে প্রচুর মানুষ আছেন যারা স্বনির্ভর ভাবে একলা। প্রেম, সত্যিকারের প্রেম হয়েছে ‘ক্ষ্যাপা খুঁজে খুঁজে ফেরে পরশপাথর’। মনের আকাশে মুষল-কাল আসে ঠিকই, কিন্তু তা ধুয়ে দিতে পারেনা অভিমানের শোণিত দাগকে। বৃষ্টি ধোয়া মুখে শুকিয়ে যাওয়া কান্না আর নদীখাত আঁকে না।

     রাই এমনই একটা মেয়ে, যার জীবনের আকাশে মেঘ-ছবি এঁকে গেছে আকাশ নামের এক ছেলে। [আরো পড়ুন]

Read more

অতিমাত্রিক

“অর্ণব বাড়ি আছিস?”

“কীরে, এই অর্ণব – বাড়ি আছিস?”

     ভাগ্যিস এ পাড়ায় লোকজন বিশেষ থাকে না, আর যে দু-চার ঘর ছেলেছোকরা থাকে, তারাও কাল কালীপুজোর আনন্দে কারণবারি গিলে এখন মধ্যযামে বিচরণ করছে। অনেকক্ষণ দরজা খটখট, চেঁচামেচি আর ঘণ্টি বাজানোর পর, চোখ রগড়াতে রগড়াতে দরজা খুলল অর্ণব। চোখ লাল, মুখে কাঁচা ঘুম ভেঙে যাওয়ার একরাশ বিরক্তি। তবে দরজা খুলে কিংশুকের মুখ দেখেই [আরো পড়ুন]

Read more

টিট্টিভ

কর্মে তীব্র অনীহাই শশিশেখরের কাল হইল।

     সেই হেতু তিনি তাঁহার রোবট, শ্রীমান তড়িৎ তর্পণ তান্ত্রিকের হাতে কর্মভার সমর্পণ করিয়া, আত্মানন্দে বশীভূত হইয়া স্থির রহিলেন। তড়িৎ তর্পণ তান্ত্রিক বা টিটিটি, অর্থাৎ আমি নাটবল্টু ও প্লাস্টিক লোহার সমাহারমাত্র নহি। আমি পুরাদস্তুর প্রোগ্রামায়িত। আমার ভিতরে যুগ যুগ ধরিয়া শশিশেখরের বিদ্যা বুদ্ধি সব সমাহৃত।

     আর শশিশেখর আপাতত [আরো পড়ুন]

Read more

টিথোনাস

গায়ের চামড়া আস্তে আস্তে কুঁচকিয়ে শিথিল হয়ে আসে। মাথার চুল পেকে সাদা হয়ে যায়। হাতের আঙুলের গাঁটগুলো ক্রমে শক্ত হয়ে কর্মক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। চোখের দৃষ্টি ক্ষীণ হয়ে আসে। দেহের হাড়গুলো ঘুণ ধরা কাঠের মত ভঙ্গুর হয়ে পড়ে। তারপর জীবনী শক্তির অভাবে রোগের সঙ্গে লড়াই করার ক্ষমতা ধীরে ধীরে লুপ্ত হয়ে যায় সাধারণ ব্যাধিও তখন মারাত্মক হয়ে পড়ে।
  [আরো পড়ুন]

Read more

ভবিষ্যতের খবর

একটি কল্পবিশ্ব ইভেন্ট 
ভবিষ্যতের খবর 

টাইম মেশিনে চড়ে ভবিষ্যৎ থেকে সিদ্ধার্থ ঘোষ চুরি করে এনেছিলেন আগামী দিনের সংবাদপত্রের পাতা এবং সেগুলি প্রকাশিত হয়েছিল ফ্যান্টাস্টিকের পাতায়। এর সাথে ভবিষ্যতের একটি বিখ্যাত পত্রিকার কিছু পাতাও ওনার কাছে এসেছিল, যা অপ্রকাশিতই থেকে গেছিলো। সম্প্রতি আমাদের এক টিমমেম্বার আবিষ্কার করেছে সেই পাতাগুলো। কি আশ্চর্য!! ওগুলো যে কল্পবিশ্বেরই পৃষ্ঠা! আমাদের [আরো পড়ুন]

Read more

রণেন ঘোষের সঙ্গে একটি দুপুর

আকাশ বেশ কালো। বর্ষার নিচু মেঘের ছায়া গাড়ির উইন্ডস্ক্রিনের ওপর ঝুঁকে পড়েছে। যখন তখন বৃষ্টি নামবে। অথচ আমরা বাড়িটা খুঁজে পাচ্ছি না!

এদিকে ফোনেও পাওয়া যাচ্ছে না। মোবাইল সুইচড অফ। ভিজিটিং কার্ডে লেখা ল্যান্ডলাইন নম্বরেও কানেকশন হচ্ছে না। কী করা যায়? তাহলে কি রণেন ঘোষের সঙ্গে দেখা হবে না? কার্ডে যে রাস্তার নাম লেখা সেখানেই চক্কর খাচ্ছি। নির্দিষ্ট নম্বরের বাড়িটা খুঁজছি।

[আরো পড়ুন]

Read more

সায়েন্স ফিকশন – সির্দ্ধাথ ঘোষের কলমে

শেষ পর্ব

বাংলা সায়েন্স ফিকশনের ঐতিহ্য

বিক্ষুব্ধ সমুদ্রকে শাসনের জন্য ভাগ্নে এইচ. বোসের (হেমেন্দ্রমোহন বসুর) তৈরি এক শিশি ‘কুন্তলীন’ তেল ঢেলে অদ্ভুত ফল পেয়েছিলেন জগদীশ্চন্দ্র বসু। একটি অনবদ্য এস.এফ কাহিনী। বাংলা ছোটগল্পের জন্য প্রতি বছর ‘কুন্তলীন’ পুরস্কার প্রবর্তনের প্রথম বর্ষেই, ১৩০৩ সালে ‘কুন্তলীন পুরস্কার’ গ্রন্থে ‘নিরুদ্দেশের কাহিনী’ মুদ্রিত [আরো পড়ুন]

Read more

ক্ষিতীন্দ্রনারায়ণ ভট্টাচার্য – বাংলা কল্পবিজ্ঞানের এক বিস্মৃত অধ্যয়

বাংলা ভাষায় শিশুকিশোর সাহিত্যের প্রথম যুগে বিজ্ঞান ভাবনার প্রচলন করে গিয়েছেন যে রথীমহারথীরা তাদের মধ্যে ক্ষিতীন্দ্রনারায়ণ ভট্টাচার্য এক উল্লেখযোগ্য নাম। জীবনের বেশীর ভাগ লেখাই তিনি লিখেছেন ছোটদের জন্য। শিশুদের মধ্যে বিজ্ঞানচেতনা বাড়ানোর জন্য বিজ্ঞানের কঠিন বিষয়কে সুন্দর ও সরস করে প্রবন্ধ বা গল্পাকারে পরিবেশনায় আজও তাঁর জুড়ি মেলা ভার। 

     ক্ষিতীন্দ্রানারায়ণের [আরো পড়ুন]

Read more

হাঁস ছিল শজারু

“হাঁস ছিল শজারু (ব্যাকরণ মানি না)

হয়ে গেল হাঁসজারু কেমনে তা জানি না।”

ছেলেবেলায় সুকুমার রায়ের ‘খিচুড়ি’ পড়তে বসে বিভিন্ন ধরনের প্রাণীর ধড়ে মুড়োয় সন্ধির কথা পড়ে বা তাঁর আঁকা সেই সব খিচুড়ি জানোয়ারের অনবদ্য সব ছবি দেখে, এক জানোয়ারের সাথে অন্যের জোড়াতালি নিয়ে নানান অলীক কল্পনাবিলাস করে অবাক হয়নি এরকম বাঙালী পাঠক বা পাঠিকা পাওয়া খুব শক্ত। কিন্তু এই এক জানোয়ারের [আরো পড়ুন]

Read more

জিন মহাপুরাণ

সারাদিন ধরে একরাশ পেপার আর বই চর্চা করার পরে সূর্য ডোবার আগে আগেই মাথাটা বিগড়ে গেল। তা মাথার খুব একটা দোষ ছিলনা। একে তো জুলাই মাসের ভ্যাপসা গরম, তার উপরে প্রতিবেশীদের মধ্যে কে যেন ভর দুপুরে শখ করে মহালয়া চালিয়েছে কম্পিউটারে। তাও আবার লুপ ফর্মে। একবার শেষ হলেই আবার বেজে উঠছে “জাগো চণ্ডী”। ছাইবর্ণ আকাশের সাথে সাথে আমার মস্তিষ্ককেও ক্রমাগত ত্রিশূলে বিদ্ধ [আরো পড়ুন]

Read more

স্মৃতিপথের নির্মাল্য

বইপোকা ও সাহিত্য সরণি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা নির্মাল্য চট্টোপাধ্যায়ের অকাল প্রয়াণে আমরা শোকস্তব্ধ। আদ্যন্ত বইপাগল এক তরতাজা প্রাণ এভাবে সকলকে ছেড়ে চলে যেতে পারে এ সত্যিই অকল্পনীয়। আমরা কল্পবিশ্বের তৃতীয় সংখ্যা নির্মাল্যর স্মৃতির উদ্দেশে উৎসর্গ করছি। 

কিছু স্মৃতিচারণা, কিছু অনুভুতি  

১)  যে সময়ে বাংলা বই ক্রমশ প্রান্তিক হয়ে পড়ছিল, সেই সময়ে দাঁড়িয়ে [আরো পড়ুন]

Read more

সম্পাদকীয়

প্রিয় পাঠক,

     মন একদম ভালো নেই আমাদের কারও। বইপোকা ও সাহিত্য সরণি ফেসবুক গ্রুপের স্রষ্টা ছাব্বিশ বছরের তরতাজা তরুণ নির্মাল্য চট্টোপাধ্যায় আর নেই। তার অকালপ্রয়াণে আমরা শোকস্তব্ধ। অনলাইনে বাংলা বইয়ের প্রচার ও প্রসারে তার ভূমিকা অনস্বীকার্য। লাজুক চেহারার একটা ছেলে কেমন করে যেন বাংলার লেখক ও পাঠকদের মধ্যে একটা সুদৃশ্য সেতুবন্ধনের কাজ করে গেছে। নির্মাল্য [আরো পড়ুন]

Read more