জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৯

নবম পরিচ্ছেদ

বিতর্কসভায় বিশ্বাসঘাতকতা

প্রতিদিনের রুটিনের সঙ্গে জেমস যতই নিজেকে মানিয়ে নিচ্ছিল, দিনগুলোও যেন ততটাই টকটক করে চলে যাচ্ছিল। ওদিকে জ্যান উত্তরোত্তর উন্নতি করছিল কুইডিচ খেলায়। আর সেই ওই সাফল্য লক্ষ্য করে জেমস এক অদ্ভুত রকমের ভালোলাগা না লাগার দ্বন্দ্বে ভুগছিল। একটা অসূয়াবোধ ওকে ক্ষত বিক্ষত করতো যখন শুনতে পেত জ্যানের দক্ষতা [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৮

অষ্টম পরিচ্ছেদ

লুকিয়ে থাকা দ্বীপ

জ্যান, জেমস আর হার্ডক্যাসল গ্র্যাপের কাঁধে চেপে চলল মাগল অভিযানে। জ্যান আর জেমস দুহাতে শক্ত করে ধরে রাখল গ্র্যাপের ছিন্ন জামার অংশ।মিঃ হার্ডক্যাসল বাচ্চারা যে ভাবে বাবা বা মায়ের গলা আঁকড়ে পিঠে ঝোলে সেই ভাবে এক হাত দিয়ে ধরে ঝুলে আছেন। অন্য হাতে উঁচিয়ে ধরে আছেন নিজের প্রজ্জ্বলিত জাদুদন্ড। সেই আলোতে নিচের [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৭

সপ্তম পরিচ্ছেদ

চোট খাওয়া আনুগত্য

ড়ুক্কু ঝাড়ু ব্যবহারের প্রাথমিক ক্লাসে হাজির হল জেমস। শিক্ষকের নাম ক্যাব্রিয়েল রিডকালি। দশাসই একজন মানুষ। নিজস্ব অফিসিয়াল কুইডিচ টিউনিকের ওপর পরে আছেন ঘাস-ঘাস রঙের একটি স্পোর্টস ক্লোক। পেশীবহুল হাতের নমুনাই বুঝিয়ে দিচ্ছে মানুষটির শরীরের গঠন।

     গমেগমে কণ্ঠস্বরে বললেন, ‘গুডমর্নিং প্রথম বার্ষিকীর দল!’ জেমস রীতিমত [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৬

ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

হ্যারির রাতের মিটিং

ক্লাস শেষ হতেই জেমস ছুট লাগালো গ্রিফিন্ডোর কমন রুমের দিকে। সিঁড়ি দিয়ে উঠতে উঠতেই খুলে ফেললো স্কুল ড্রেস। ঝটপট ইভিনিং ক্লোক আর জ্যাকেট গায়ে চাপিয়ে এলোমেলো চুলটাকে বেসিনের জল দিয়ে একটু সমান করে নিলো। আনায় বেশ কয়েকবার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে নিজেকে দেখেও নিলো ভালো করে। তারপর যে গতিতে ঘরে এসেছিল তার চেয়েও দ্রুত গতিতে [আরো পড়ুন]

Read more

শান্ত গ্রহ – য়ুরি গ্লাজকভ

কটা খুব সুন্দর এবং সমৃদ্ধ গ্রহ। সম্ভবত মহাবিশ্বের সবচেয়ে সেরা গ্রহ। সবুজ রঙের পাহাড় সারির তলায় জমে আছে ধাতুর এক মহা ভান্ডার। এ গ্রহের শিরায় উপশিরায় বয়ে যাওয়া কালো তরল একে যোগাচ্ছে অপরিমেয় শক্তি। এখানকার গাছপালাকে দেখলে বোঝা যায় আক্ষরিক অর্থে মহীরুহ কাকে বলে। এদিকে ওদিকে ছুটে বেড়ায় নানান জীবজন্তু। আকাশে উড়ে বেড়ায় কত রকমের পাখি। নদীর জলে [আরো পড়ুন]

Read more

চব্বিশ ঘন্টার জন্য খোলা – এডওয়ার্ড ম্যাকিওয়েন

মেডাকালা মিউজিয়াম অফ অ্যান্টিক্সএর ধুলো জমে থাকা বারান্দা দিয়ে কিউরেটরের অফিসের দিকে হেঁটে যাচ্ছিলো টারস বোকারা। রোগা এই তরুণটির ভাগ্য শুধু এই কারনেই বিচ্ছিরী নয় যে সে কোল ট্র্যাকসিস তিন নম্বর সেক্টরের অন্তর্গত হাজারেরও বেশী মিউজিয়ামের একটিতে [আরো পড়ুন]

Read more

একজন দেবতার দিনলিপি

সিবাতারো ফেলিস রো এল ভেত্রো ডোরকাতনা না এ উচ্চারনে লেখাটা ঠিক হবে না। যদি কোন দিন কোনোক্রমে এ লেখনী পৃথিবীবাসীর হাতে পৌছায় তাহলে তাদের পড়তে অসুবিধা হবে। যদিও এসব উচ্চারনের মানে আমি লিখে রাখছি। কিন্তু যেখানে আর কখনই ফিরে যেতে পারবো না সেখানকার সুবিধা সুবিধার কথা ভেবে লাভই বা কি? চরম সর্বনাশ থেকে সিবাতাদের বাঁচানোটাই আমার প্রথম উদ্দেশ্য ছিল সেটায় কিছুটা হলেও আমি সফল হয়েছি।

[আরো পড়ুন]

Read more

চোঙদার’স ইনইক্যুয়ালিটি

বাসটা ঢিকিয়ে ঢিকিয়ে এগোচ্ছে। স্ট্যান্ড থেকে বেরনো ইস্তক হেল্পার আর কন্ডাক্টর সমানে হাঁকডাক চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু শেষ দশ মিনিটে বাসটা দশ হাত এগিয়েছে কিনা সন্দেহ। তবে এসব হল কথার কথা; সময় আর রাস্তার লম্বাই কি অত সহজ অংক মেনে [আরো পড়ুন]

Read more