সাত স্বপ্নের রাত

এ কাহিনি আমার ছোটবেলার। সেদিন বুঝিনি স্বপ্ন সম্রাট আমাকে কী বলেছিলেন? বড় হয়ে অনুভব করেছি সে কথার মর্মার্থ। ছোটবেলায় আমি খুবই স্বপ্ন দেখতাম। সে সব স্বপ্নের সঙ্গে এতটাই একাত্ম হয়ে যেতাম যে প্রায় দিনই বিছানা থেকে পড়ে যেতাম। নানা রকম স্বপ্ন দেখতাম। তার কোনওটাই আমার মনে নেই। কিন্তু টানা সাতদিন ধরে দেখা একটা স্বপ্নের খুঁটিনাটি এখনও আমার মনে গেঁথে বসে আছে। [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ২১ (অন্তিম পর্ব)

একবিংশ অধ্যায়

 সবুজ বাক্সের উপহার

স্কুলে প্রথম বছরের শেষ সপ্তাহটা জেমসের চোখের সামনে দিয়ে গড়গড়িয়ে চলে গেল যেন। কোন চাপ নেই, নেই কোন ভয়ানক রকমের অ্যাডভেঞ্চার বা মরণপণ প্রচেষ্টার চিন্তা।  তুলনামূলকভাবে অনেক কম চিন্তাভাবনার দরকার এমন কিছু নিবন্ধ লিখতে হলো। আর তার সঙ্গে চললো জাদুদন্ড ব্যবহারের শিক্ষা। হল অফ দ্যা এল্ডারস ক্রসিং এর উত্থানের [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ২০

বিংশ অধ্যায়

 বিশ্বাসঘাতকের গল্প

মি কিন্তু দেখেছিলাম!’ ল্যান্ডরোভার দুটোর মধ্যে দিয়ে ভিন্সের পেছনে যেতে যেতে প্রেস্কট খসখসে গলায় প্রমাণ করার ভঙ্গীতে বললেন। ‘দৈত্যদের দেখেছি! একটা তো ওই গাছগুলোর মতো লম্বা! ওদের পায়ের ছাপের মাপ … ছাপের মাপ …!” দুদিকে হাত প্রসারিত করলেন। পাত্তা না দিয়ে ভিন্স ক্যামেরাটা ঢুকিয়ে রাখলো ফোম দিয়ে ঘেরা স্যুটকেসের ভেতর।

টাই [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৯

ঊনবিংশ অধ্যায়

রহস্যের উন্মোচন

রের দিন অনেকটা বেলা হয়ে যাওয়ার পর হ্যারি ব্রেকফাস্ট করার জন্য গ্রেট হলের নিচে হাউস এলফদের রান্নাঘরে এলেন। সঙ্গে জেমস, জ্যান আর র‍্যালফ। জেমস দেখতে পেল বিরাট আকারের স্টোভটাকে নিয়ন্ত্রণ করছে সেই গোমড়ামুখো এলফটা যে আগেরবার বলেছিল জেমসদের দিকে  ওদের নজরে থাকবে। এলফটা ওদের দিকে তাকাল কিন্তু কিছু বলল না।  একটা [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৮

অষ্টাদশ অধ্যায়

 দ্য টাওয়ার অ্যাসেম্বলী

দিগন্তরেখায় ভোরের গোলাপি আলো দেখা দিতেই জেমসের চোখ খুলে গেল। ও পড়ে আছে লুক্কায়িত দ্বীপের ঘাসের ওপর অস্বস্তিকর ভাবে। মনে হচ্ছে ওর হাড় পর্যন্ত ঠান্ডা হয়ে গেছে। একটা কাতরানোর শব্দ বেড়িয়ে এলো নিজের অজান্তেই, উঠে বসার সময়। চারদিকে তাকাতেই প্রথমেই চোখে পড়লো মারলিনের সিংহাসনটা নেই। যেখানে ওটা রাখা ছিল, [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৭

সপ্তদশ অধ্যায়

প্রত্যাবর্তনের রাত

প্রফেসর জ্যাকসনের অভিযোগ মাদাম কিউরিওর চিকিৎসা ক্ষেত্রে কোন প্রভাব ফেললো না অবশ্য। অনেকটা সময় নিয়ে হাতটা পরীক্ষা করলেন উনি। কখনো টিপলেন, কখনো চিমটি কাটলেন । তারপর ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখে   যত্ন করে ব্যান্ডেজ করে দিলেন। আর সেটা করার সময় ওঁর মুখ বন্ধ হলনা ক্ষণিকের জন্যেও।  বক বক করে গেলেন কুইডিচ খেলার সময়ের [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৬

ষোড়শ অধ্যায়

মারলিনের জাদু লাঠির বিপর্যয়

রের দিন সকালে জেমস, র‍্যালফ আর জ্যান গ্রেট হলে ব্রেকফাস্ট করতে এসে সোজা গ্রিফিন্ডোর টেবিলের শেষ প্রান্তের দিকে এগিয়ে গেল।

হলের ভেতর দিকে হেঁটে যেতে যেতে র‍্যালফ বলল, ‘তুই নিশ্চিত তো এ ব্যাপারে? আশা করি বুঝতে পারছিস এখান ফেরার কোনও পথ আর আমাদের সামনে খোলা থাকবে না।’

জেমস ঠোঁটে ঠোঁট চেপে ধরল, কিন্তু কোনও কথা বলল [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৫

পঞ্চদশ অধ্যায়

মাগল স্পাই

মার্টিন জে প্রেস্কট একজন রিপোর্টার। উনি সবসময়ে সেই শব্দগুলোর কথা ভাবেন যার কিছুটা হলেও গুরুত্ব আছে। মার্টিনের কাছে রিপোর্টার ব্যাপারটা একটা কাজের চেয়েও বেশী কিছু। ওটা তার পরিচয়। কেবলমাত্র একটা প্রতিবেদকের নাম বা একটা ছবি হয়ে থাকাটা তার অপছন্দের ব্যাপার। চব্বিশ ইন্টু সাত এর দৌড়াতে থাকা জগতে এরকম মানুষদের প্রযোজকরা [আরো পড়ুন]

Read more

ওটা ভালোদের জায়গা নয়

ওটা ভালোদের জায়গা নয়

লেখক – প্রতিম দাস

অলংকরণ – প্রতিম দাস

 

ন্ধকার ঘরে একটা মোমবাতি জ্বেলে উইজা বোর্ডের সামনে একা বসেছিল অজয়। ‘হে আত্মাগণ কেউ কি আমার কথা শুনতে পাচ্ছো? কিছু একটা সংকেত দেখাও যাতে আমি কাজলের সঙ্গে কথা বলতে পারি। একটা কিছু চিহ্ন দাও। প্লিজ! প্লিজ!!’

     গোটা তিনেক সজোরে ধাক্কা মারার শব্দ শোনা গেল কোথাও।

     টানটান হয়ে বসলো অজয়। ‘তুমি [আরো পড়ুন]

Read more

চরম রসিকতা

 

 

previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৪

চতুর্দশ অধ্যায়

দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং

রেরদিন ব্রেকফাস্টের টেবিলে র‍্যালফ জানতে চাইল, ‘কীজন্য? কেন আমরা ওর ঝাড়ুটা চুরি করব জানতে পারি কী?’ সসেজের প্লেটটা নেওয়ার জন্য টেবিলের ওপর ঝুঁকে বলল, ‘জ্যাক্সনের ব্রিফকেস অদলবদল থেকেও কঠিন কাজ এটাকে চুরি করা। মেয়েদের ডরমে ছেলেদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। আমরা ওটার কাছেও যেতে পারব না! তাছাড়া আমরা তো পোশাকটা [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১৩

ত্রয়োদশ অধ্যায়

পোশাকের রহস্য

ইদিন রাতে ডিনারের পর তিন বন্ধু আবার চলল গ্রিফিন্ডোরের শয়নকক্ষের দিকে। জেমস একবার থামল একটা ছবির কাছে। ছবিতে অতিরিক্ত মোটাসোটা এক গরুর দুধ দোয়াচ্ছে কিছু মহিলা। ছবি থেকে এক মহিলা ওর দিকে তাকিয়ে আছে। তখন জেমস ওই লম্বা এবং কুৎসিত দর্শন মহিলার কাছে জানতে চাইল উনি কী দেখছেন। তিরিশ সেকেন্ড কেটে যাওয়ার পর কোনও [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১২

দ্বাদশ পরিচ্ছেদ

ভিসাম-ইনেপ্সিও

জ্যাক্সনের ব্রিফকেসটা হাতানোর জন্য জেমসদের সামনে প্রথম যে বাধা টপকানো দরকার সেটা হলো একটা প্রায় একইরকম দেখতে ব্রিফকেস জোগাড় করা। জ্যান যেমনটা বলেছিল ঠিক তেমনই ওটা একটা সাধারণ চামড়ার ব্যাগ। ব্রিফকেসের তুলনায় অনেক বেশী পরিমাণে ডাক্তারি ব্যাগের মতো দেখতে।  সোমবার রাতে ডিনার করার সময় ফ্যাকাল্টিদের টেবিলে [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১১

একাদশ পরিচ্ছেদ

তিনটি রেলিক

স্কুল থেকে ফিরে আসার পরের সাময়িক উত্তেজনার শেষে গ্রিমাল্ড প্লেসে ক্রিসমাসের ছুটির দিনগুলো আর পাঁচটা দিনের মতোই কাটতে থাকলো। র‍্যালফের সঙ্গে সবার পরিচয় করে দেওয়ার পর আর একজন পারিবারিক সদস্যর মতো সে মেতে গিয়েছে বাকিদের মতোই আনন্দের জোয়ারে। ক্রিসমাসের আগের বুধবারে হুগো আর রোজকে নিয়ে আঙ্কল রন ও হারমায়োনি আন্টি [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ১০

দশম পরিচ্ছেদ

ছুটির দিনে গ্রিমাল্ড প্লেসে

রের সোমবার ম্যাকগনাগল ম্যামের অ্যাডভান্সড ট্রান্সফিগারেশনের ক্লাস শেষ হওয়ার পর জেমস, জ্যান আর র‍্যালফ দরজার বাইরে দাঁড়িয়ে থাকলো যতক্ষণ না শেষ শিক্ষার্থীটি বের হয়ে আসে। হেডমিস্ট্রেস গুছিয়ে নিচ্ছিলেন নিজের সাজ সরঞ্জাম।

‘কাম ইন, কাম ইন,’ উনি বললেন ওদেরকে উদ্দেশ্য করেই অথচ তাকাননি একবারও। ‘ওরকম শকুনের মত উঁকিঝুঁকি [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৯

নবম পরিচ্ছেদ

বিতর্কসভায় বিশ্বাসঘাতকতা

প্রতিদিনের রুটিনের সঙ্গে জেমস যতই নিজেকে মানিয়ে নিচ্ছিল, দিনগুলোও যেন ততটাই টকটক করে চলে যাচ্ছিল। ওদিকে জ্যান উত্তরোত্তর উন্নতি করছিল কুইডিচ খেলায়। আর সেই ওই সাফল্য লক্ষ্য করে জেমস এক অদ্ভুত রকমের ভালোলাগা না লাগার দ্বন্দ্বে ভুগছিল। একটা অসূয়াবোধ ওকে ক্ষত বিক্ষত করতো যখন শুনতে পেত জ্যানের দক্ষতা [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৮

অষ্টম পরিচ্ছেদ

লুকিয়ে থাকা দ্বীপ

জ্যান, জেমস আর হার্ডক্যাসল গ্র্যাপের কাঁধে চেপে চলল মাগল অভিযানে। জ্যান আর জেমস দুহাতে শক্ত করে ধরে রাখল গ্র্যাপের ছিন্ন জামার অংশ।মিঃ হার্ডক্যাসল বাচ্চারা যে ভাবে বাবা বা মায়ের গলা আঁকড়ে পিঠে ঝোলে সেই ভাবে এক হাত দিয়ে ধরে ঝুলে আছেন। অন্য হাতে উঁচিয়ে ধরে আছেন নিজের প্রজ্জ্বলিত জাদুদন্ড। সেই আলোতে নিচের [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৭

সপ্তম পরিচ্ছেদ

চোট খাওয়া আনুগত্য

ড়ুক্কু ঝাড়ু ব্যবহারের প্রাথমিক ক্লাসে হাজির হল জেমস। শিক্ষকের নাম ক্যাব্রিয়েল রিডকালি। দশাসই একজন মানুষ। নিজস্ব অফিসিয়াল কুইডিচ টিউনিকের ওপর পরে আছেন ঘাস-ঘাস রঙের একটি স্পোর্টস ক্লোক। পেশীবহুল হাতের নমুনাই বুঝিয়ে দিচ্ছে মানুষটির শরীরের গঠন।

     গমেগমে কণ্ঠস্বরে বললেন, ‘গুডমর্নিং প্রথম বার্ষিকীর দল!’ জেমস রীতিমত [আরো পড়ুন]

Read more

জেমস পটার অ্যান্ড দ্য হল অফ এল্ডারস ক্রসিং – পার্ট ৬

ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

হ্যারির রাতের মিটিং

ক্লাস শেষ হতেই জেমস ছুট লাগালো গ্রিফিন্ডোর কমন রুমের দিকে। সিঁড়ি দিয়ে উঠতে উঠতেই খুলে ফেললো স্কুল ড্রেস। ঝটপট ইভিনিং ক্লোক আর জ্যাকেট গায়ে চাপিয়ে এলোমেলো চুলটাকে বেসিনের জল দিয়ে একটু সমান করে নিলো। আনায় বেশ কয়েকবার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে নিজেকে দেখেও নিলো ভালো করে। তারপর যে গতিতে ঘরে এসেছিল তার চেয়েও দ্রুত গতিতে [আরো পড়ুন]

Read more

শান্ত গ্রহ – য়ুরি গ্লাজকভ

কটা খুব সুন্দর এবং সমৃদ্ধ গ্রহ। সম্ভবত মহাবিশ্বের সবচেয়ে সেরা গ্রহ। সবুজ রঙের পাহাড় সারির তলায় জমে আছে ধাতুর এক মহা ভান্ডার। এ গ্রহের শিরায় উপশিরায় বয়ে যাওয়া কালো তরল একে যোগাচ্ছে অপরিমেয় শক্তি। এখানকার গাছপালাকে দেখলে বোঝা যায় আক্ষরিক অর্থে মহীরুহ কাকে বলে। এদিকে ওদিকে ছুটে বেড়ায় নানান জীবজন্তু। আকাশে উড়ে বেড়ায় কত রকমের পাখি। নদীর জলে [আরো পড়ুন]

Read more

চব্বিশ ঘন্টার জন্য খোলা – এডওয়ার্ড ম্যাকিওয়েন

মেডাকালা মিউজিয়াম অফ অ্যান্টিক্সএর ধুলো জমে থাকা বারান্দা দিয়ে কিউরেটরের অফিসের দিকে হেঁটে যাচ্ছিলো টারস বোকারা। রোগা এই তরুণটির ভাগ্য শুধু এই কারনেই বিচ্ছিরী নয় যে সে কোল ট্র্যাকসিস তিন নম্বর সেক্টরের অন্তর্গত হাজারেরও বেশী মিউজিয়ামের একটিতে [আরো পড়ুন]

Read more

একজন দেবতার দিনলিপি

সিবাতারো ফেলিস রো এল ভেত্রো ডোরকাতনা না এ উচ্চারনে লেখাটা ঠিক হবে না। যদি কোন দিন কোনোক্রমে এ লেখনী পৃথিবীবাসীর হাতে পৌছায় তাহলে তাদের পড়তে অসুবিধা হবে। যদিও এসব উচ্চারনের মানে আমি লিখে রাখছি। কিন্তু যেখানে আর কখনই ফিরে যেতে পারবো না সেখানকার সুবিধা সুবিধার কথা ভেবে লাভই বা কি? চরম সর্বনাশ থেকে সিবাতাদের বাঁচানোটাই আমার প্রথম উদ্দেশ্য ছিল সেটায় কিছুটা হলেও আমি সফল হয়েছি।

[আরো পড়ুন]

Read more

চোঙদার’স ইনইক্যুয়ালিটি

বাসটা ঢিকিয়ে ঢিকিয়ে এগোচ্ছে। স্ট্যান্ড থেকে বেরনো ইস্তক হেল্পার আর কন্ডাক্টর সমানে হাঁকডাক চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু শেষ দশ মিনিটে বাসটা দশ হাত এগিয়েছে কিনা সন্দেহ। তবে এসব হল কথার কথা; সময় আর রাস্তার লম্বাই কি অত সহজ অংক মেনে [আরো পড়ুন]

Read more
error: Content is protected !!